জন্মদিনে বিনম্র চিত্তে স্মরণ করছি বাংলাভূমিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করে যাওয়া বাংলাদেশের অন্যতম স্বপ্নদ্রষ্টা “মজলুম জননেতা,লাল মাওলানা” খ্যাত আব্দুল হামিদ খাঁন ভাসানীকে। ১২ ডিসেম্বর ১৮৮০ সালে ধানগড়া- সিরাজগঞ্জে জন্ম নেওয়া মাওলানা ভাসানী ব্যক্তি জীবনে ছিলেন ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত একজন কমিউনিস্ট ব্যক্তিত্ব। বর্তমান সমাজের চোখে দ্বিমুখী চরিত্র কিন্তু সীমাহীন জনপ্রিয়।

মাওলানা ভাসানী ক্রমান্বয়ে খিলাফত আন্দোলন, অসহযোগ আন্দোলন, বাংলা ভাষা আন্দোলন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ, ফারাক্কা লংমার্চসহ অনেক রাজনৈতিক আন্দোলনের ডিসিশন মেকার পর্যায়ের নেতা। লড়েছেন বৃটিশ শক্তির বিরুদ্ধে, পাকিস্তান শক্তির বিরুদ্ধে সবশেষে বাংলাদেশের নব্য প্রতিষ্ঠিত সরকারটির সাথেও বিরোধ লেগে যায় । আধিপত্যবাদী ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তির বিরুদ্ধে যেনো মজলুম হয়ে লড়াই করা তার জন্ম নেশা। ১৯৫৭ সালের কাগমারী সম্মেলনে পাকিস্তানকে আসসালামু আলাইকুম (বিদায়) বলে এই বাংলাভূমির জনগনকে যে স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন সে স্বপ্নই ১৯৭১ সালে সফল হয়েছিলেন।

মহান এই নেতার ১৪৪তম জন্মবার্ষিকীতে বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ, টাংগাইল জেলা শাখা পুস্পস্তবক অর্পণ করে,সেই সাথে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এর সাথে ভাসানী ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ এর লিখিত চুক্তি অনতি বিলম্বে বাস্তবায়ন এর জন্যে..৫দফা দাবিতে অনশন চলছে।ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের পক্ষ থেকে দাবি গুলো মেনে নেওয়ার জন্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি আহবাব জানানো হয়েছে।